এমএস ওয়ার্ড টিউটোরিয়াল: পর্ব-১৯

মাইক্রোসফট ওয়ার্ডে টেক্সট ফরম্যাটিং সংক্রান্ত কাজ

সর্বশেষ আপডেট:

এই নিবন্ধে আমরা টেক্সট ফরম্যাটিং সংক্রান্ত কাজ অর্থাৎ ফন্ট নির্বাচন, ফন্ট আকার ছোটো-বড়ো করা, বোল্ড, ইটালিক, আন্ডারলাইন, সাবস্ক্রিপ্ট, সুপারস্ক্রিপ্ট, স্ট্রাইক-থ্রু, হাইলাইট করা, টেক্সটের রং পরিবর্তন করা এবং টেক্সট ফরম্যাটিং ক্লিয়ার করা ইত্যাদি বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করবো।

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড টিউটোরিয়াল সিরিজের সকল পর্ব এখানে দেখুন।

টেক্সট ফরম্যাটিং সংক্রান্ত কিছু জ্ঞাতব্য বিষয়:

টেক্সট ফরম্যাটিং-এর ক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয় মনে রাখতে হবে।

  • আমরা যে অংশের বা যতটুকু অংশের টেক্সট পরিবর্তন করতে চাই ততোটুকু অংশ সিলেক্ট করে নিতে হবে। সিলেক্ট করার উপায় সম্পর্কে পূর্ববর্তী পর্বে আলোচিত হয়েছে।
  • একটি শব্দ ফরম্যাটিং করতে ঐ শব্দের মাঝে কার্সর রাখলেই চলবে। পুরো শব্দটি সিলেক্ট করার প্রয়োজন নেই।
  • একই টেক্সটে একাধিক কমান্ড প্রয়োগ করা যায়। যেমন কোনো টেক্সট একইসাথে মোটা, বাঁকা ও আন্ডারলাইনড করা যায়। সেক্ষেত্রে একটি কমান্ডের পর অপরটি প্রয়োগ করতে হবে।
  • কোনো ফরম্যাটিং মুছে ফেলতে হলে ঐ কমান্ডটিই আবার প্রয়োগ করতে হবে। যেমন Ctrl + B চেপে কোনো টেক্সট বোল্ড করার পর পুনরায় আগের মতো করতে হলে, দ্বিতীয়বার Ctrl + B চাপতে হবে। একইভাবে বাঁকা/ইটালিক কোনো টেক্সট সোজা করতে হলে Ctrl + I চাপতে হবে।
  • সব ধরনের ফরম্যাটিং মুছে ফেলার জন্যে Clear All Formatting নির্দেশক আইকনটি (ফন্ট গ্রপের ১৫ নং আইকন) ব্যবহার করা যায়।

ফন্ট গ্রুপ ও ফন্ট ডায়ালগ বক্স:

ওয়ার্ডের হোম ট্যাব (Home Tab) সম্পর্কে আলোচনায় ইতোপূর্বে ফন্ট গ্রুপ ও ফন্ট ডায়ালগ বক্স সম্পর্কে ধারণা দেয়া হয়েছে। বারবার প্রয়োজন হবে বিধান এ দুটি বিষয় এখানে পুনরায় তুলে ধরা হলো।

ফন্ট গ্রুপ: ফন্ট গ্রুপটি হোম ট্যাবের অধীনে রয়েছে। তাই অন্য কোনো ট্যাবে থেকে থাকলে Home ট্যাবে ক্লিক করে কিংবা Alt + H চেপে হোম ট্যাবে আসতে হবে। ফন্ট গ্রুপের অধীনে বিভিন্ন আইকন সম্বলিত কমান্ড/বোতামে ক্লিক করে সংশ্লিষ্ট স্টাইল ও ফরম্যাটিং-এর কাজ করা যায়।

ফন্ট ডায়ালগ-বক্স: ফন্ট গ্রুপের অধীনে নিম্নমুখী তীরচিহ্নে ক্লিক করলে ফন্ট ডায়ালগ-বক্স ওপেন হবে। এছাড়া কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + D প্রয়োগ করেও এটি আনা যায়। এখান থেকেও টেক্সটের ফরম্যাটিং সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজ করা যায়।

ফন্ট নির্বাচন ও পরিবর্তন করা:

প্রাথমিকভাবে ফন্টের ভিন্নতার কারণে টেক্সটের ধরন, আকার ইত্যাদি ভিন্ন হয়ে থাকে। একই ফন্ট সব ভাষার টেক্সট সাপোর্ট নাও করতে পারে। অর্থাৎ ভাষাভেদে ফন্ট ভিন্ন হয়ে থাকে। ওয়ার্ড ২০১৯-এ ডিফল্ট হিসেবে Calibri (Body) ফন্টটি সিলেক্ট করা থাকে। বাংলা টাইপের ক্ষেত্রে কাঙ্ক্ষিত বাংলা ফন্টটি এখান থেকে সিলেক্ট করতে হবে। কোনো টেক্সটের ফন্ট পরিবর্তনের ক্ষেত্রে প্রথমে তা সিলেক্ট করে নিচের যে কোনো একটি পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে।

  • ফন্ট গ্রুপের উপরে বাম কোনায় বর্তমান ফন্টের নাম সম্বলিত ড্রপডাউন বক্সে ক্লিক করলে পিসিতে ইনস্টলকৃত ফন্টগুলোর একটি তালিকা দৃশ্যমান হবে। সেখান থেকে কাঙ্ক্ষিত ফন্টটি বাছাই করতে হবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Font ড্রপডাউন থেকে কাঙ্ক্ষিত ফন্টটি বাছাই করতে হবে।

ফন্টের আকার পরিবর্তন করা:

ফন্টের আকার কয়েকভাবে পরিবর্তন করা যায়।

  • ফন্ট গ্রুপের Font Size ড্রপডাউনের  সাহায্যে: তীরচিহ্নে ক্লিক করলে কিছু প্রিসেট ফন্ট সাইজ সম্বলিত ড্রপডাউন ওপেন হবে। প্রিসেট সাইজগুলো হলো ৮, ৯, ১০, ১১, ১২, ১৪, ১৬, ১৮, ২০, ২২, ২৪, ২৬, ২৮, ৩৬, ৪৮ ও ৭২। এগুলোর মধ্য থেকে যেকোনো সাইজ সিলেক্ট করে ফন্ট ছোটো-বড়ো করা যায়। ডিফল্ট হিসেবে ১১ সাইজ সিলেক্ট করা থাকে।
  • প্রিসেট সাইজ ব্যতীত অন্য কোনো আকার নির্বাচন করতে চাইলে, ফন্টের আকার নির্দেশক ফিল্ডে ক্লিক করে কাঙ্ক্ষিত আকার, যেমন 144 টাইপ করে এন্টার চাপতে হবে।
  • একইভাবে ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Font size ড্রপডাউন ব্যবহার করে ফন্টের আকার ছোটো-বড়ো করা যায়।
  • Increase Font Size: প্রিসেট সাইজ অনুযায়ী ফন্টের আকার এক ধাপ বাড়বে। ৭২-এর পর ফন্টের আকার পরবর্তী দশকের ঘরে, অর্থাৎ ৮০, ৯০, ১০০… এভাবে বাড়বে। কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + Shift + >
  • Decrease Font Size: প্রিসেট সাইজ অনুযায়ী ফন্টের আকার এক ধাপ কমবে। কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + Shift + <

কিবোর্ড শর্টকাট:

  • Ctrl + ] ফন্টের আকার ১ পয়েন্ট করে বাড়বে।
  • Ctrl + [ ফন্টের আকার ১ পয়েন্ট করা কমবে।
  • Ctrl + Shift + > প্রিসেট সাইজ অনুযায়ী ফন্টের আকার এক ধাপ বাড়বে।
  • Ctrl + Shift + < প্রিসেট সাইজ অনুযায়ী ফন্টের আকার এক ধাপ কমবে।

টেক্সট বোল্ড (Bold) বা মোটা করা:

কাঙ্ক্ষিত টেক্সট সিলেক্ট করার পর নিচের যে কোনো উপায়ে তা বোল্ড বা মোটা করা যায়।

  • ফন্ট গ্রুপের B আইকনে (১ নং আইকন) ক্লিক করলে টেক্সট মোটা হয়ে যাবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Font style হিসেবে Bold সিলেক্ট করে ওকে করতে হবে।
  • কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + B প্রয়োগ করে।

টেক্সট ইটালিক (Italic) বা বাঁকা করা:

যতোটুকু টেক্সট বাঁকা করতে চাই ততোটুকু সিলেক্ট করতে হবে। তারপর সিলেক্টকৃত টেক্সট বাঁকা করতে –

  • ফন্ট গ্রুপের I আইকনে (২ নং আইকন) ক্লিক করতে হবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Font style হিসেবে Italic সিলেক্ট করে ওকে করতে হবে।
  • কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + I প্রয়োগ করে।

টেক্সট আন্ডারলাইনড (Underlined) করা এবং আন্ডারলাইনের স্টাইল ও রং পরিবর্তন করা:

টেক্সটের নিচে আড়াআড়ি দাগ বা আন্ডারলাইন দিতে চাইলে  –

  • ফন্ট গ্রুপের U আইকনে (৩ নং আইকন) ক্লিক করতে হবে। ওয়ার্ডে ডিফল্ট হিসেবে টেক্সটের নিচে আড়াআড়ি একটি দাগ দৃশ্যমান হয় এবং টেক্সটের রংটিই আন্ডারলাইনের রং হিসেবে ব্যবহৃত হয়। আন্ডারলাইনের অন্য কোনো স্টাইল ও রঙের জন্য U আইকনের ডানের নিম্নমুখী তীরচিহ্নে ক্লিক করে কাঙ্ক্ষিত স্টাইলটি সিলেক্ট করতে হবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Underline style হিসেবে None বাদে অন্য যেকোনো একটি সিলেক্ট করে ওকে করতে হবে। আন্ডারলাইনের আলাদা কোনো রং দিতে চাইলে Underline color থেকে সে রংটি বাছাই করতে হবে।
  • কিবোর্ড শর্টকাট:
    • Ctrl + U: ডিফল্ট আন্ডারলাইনের জন্য।
    • Ctrl + Shift + W: সিলেক্টকৃত টেক্সটের শব্দগুলো শুধু আন্ডারলাইন হবে। কিন্তু শব্দগুলোর মাঝের জায়গায় কোনো আন্ডারলাইন হবে না।
    • Ctrl + Shift + D: সিলেক্টকৃত টেক্সট ডাবল আন্ডারলাইন হবে।

টেক্সট কেটে দেয়া বা স্ট্রাইকথ্রু (Strikethrough) করা:

সিলেক্টকৃত টেক্সট স্ট্রাইকথ্রু করতে অর্থাৎ টেক্সটের মাঝ বরাবর দাগ/রেখা দিতে চাইলে  –

  • ফন্ট গ্রুপের abc আইকনে (৪ নং আইকন) ক্লিক করতে হবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Effects হিসেবে Strikethrough চেক করে ওকে করতে হবে।

সাবস্ক্রিপ্ট (Subscript) করা:

কোনো টেক্সটকে অন্যান্য টেক্সটের নিচে ছোটো আকারে দেখাতে সাবস্ক্রিপ্ট কমান্ড ব্যবহৃত হয়। যেমন পানির সংকেত H2O লিখতে হলে, প্রথমে H2O টাইপ করে তারপর 2 সিলেক্ট করে নিচের যেকোনো একটি কমান্ড দিলে 2 নিচে সরে গিয়ে H2O হয়ে যাবে। –

  • ফন্ট গ্রুপের X2 আইকনে (৫ নং আইকন) ক্লিক করতে হবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Effects হিসেবে Subscript চেক করে ওকে করতে হবে।
  • কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + = প্রয়োগ করে।

সুপারস্ক্রিপ্ট (Superscript) করা:

কোনো টেক্সটকে অন্যান্য টেক্সটের উপরে ছোটো আকারে দেখাতে সুপারস্ক্রিপ্ট কমান্ড ব্যবহৃত হয়। যেমন a2 লিখতে হলে, প্রথমে a2 টাইপ করে তারপর 2 সিলেক্ট করে নিচের যেকোনো একটি কমান্ড দিলে 2 উপরে সরে গিয়ে a2 হয়ে যাবে। –

  • ফন্ট গ্রুপের X2 আইকনে (৬ নং আইকন) ক্লিক করতে হবে।
  • ফন্ট ডায়ালগ-বক্সে Effects হিসেবে Superscript চেক করে ওকে করতে হবে।
  • কিবোর্ড শর্টকাট Ctrl + Shift + + প্রয়োগ করে।

টেক্সটের রং পরিবর্তন:

Font Color সম্বলিত আইকন (৯ নং আইকন) ব্যবহার করে টেক্সটের রং পরিবর্তন করা যায়। ওয়ার্ড চালু করার পর Font Color কমান্ডের ডিফল্ট রং হিসেবে লাল সিলেক্ট করা থাকে। সেক্ষেত্রে উক্ত আইকনে ক্লিক করলে টেক্সট রং লাল হয়ে যাবে। অন্য কোনো রং-এর জন্য ডানপাশের তীরচিহ্নে ক্লিক করে কাঙ্ক্ষিত রংটি বাছাই করতে হবে।

টেক্সট হাইলাইট করা:

Text Highlight Color সম্বলিত আইকন (৮ নং আইকন) ব্যবহার করে টেক্সটের ব্যাকগ্রাউন্ডের রং পরিবর্তন করে সংশ্লিষ্ট টেক্সট হাইলাইট করা যায়। ওয়ার্ড চালু করার পর Text Highlight Color কমান্ডের ডিফল্ট রং হিসেবে হলুদ সিলেক্ট করা থাকে। সেক্ষেত্রে উক্ত আইকনে ক্লিক করলে টেক্সটের ব্যাকগ্রাউন্ডের রং হলুদ হয়ে যাবে। অন্য কোনো রং-এর জন্য ডানপাশের তীরচিহ্নে ক্লিক করে কাঙ্ক্ষিত রংটি বাছাই করতে হবে।

ইংরেজি টেক্সটের কেস (Case) পরিবর্তন করা:

এটি ইংরেজি টেক্সটের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। ইংরেজি টেক্সটকে দ্রুত ছোটো হাতের (Smaller Letter) কিংবা বড়ো হাতের (Capital Letter) অক্ষরে পরিবর্তিত করার জন্যে এটি ব্যবহার করা যায়। ড্রপডাউনের প্রতিটি অপশনের নামের মধ্যেই তার কাজ বলে দেয়া আছে।

  • Sentence case: সিলেক্টকৃত ইংরেজি টেক্সটের প্রথম শব্দের প্রথম অক্ষরটি শুধু বড়ো হাতের হবে্। বাকি সব ছোটো হাতের হয়ে যাবে।
  • lower case: সিলেক্টকৃত ইংরেজি টেক্সগুলো ছোটো হাতের হয়ে যাবে।
  • UPPER CASE: সিলেক্টকৃত ইংরেজি টেক্সটগোলো বড়ো হাতের হয়ে যাবে।
  • Capitalize Each Word: সিলেক্টকৃত ইংরেজি টেক্সটের প্রতিটি শব্দের প্রথম বর্ণটি বড়ো হাতের হবে। বাকিগুলো ছোটো হাতের হয়ে যাবে।
  • tOGGLE cASE: সিলেক্টকৃত ইংরেজি টেক্সটের কেস টুগল করবে। অর্থাৎ বড়ো হাতের অক্ষর ছোটো হাতের হয়ে যাবে এবং ছোটো হাতের অক্ষরগুলো বড়ো হাতের হয়ে যাবে।

সব ফরম্যাটিং মুছে ফেলা:

সব ধরনের ফরম্যাটিং মুছে ফেলার জন্যে Clear All Formatting নির্দেশক আইকনটি (১৫ নং আইকন) ব্যবহার করা যায়।

শেয়ার, কমেন্ট, মেইল বা প্রিন্ট করুন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।